বৈশাখের মল্লিকা – অনিন্দিতা শাসমল

বৈশাখের মল্লিকা – অনিন্দিতা শাসমল

সকালের সোনালী রোদ এসে পড়েছে, মাধবীলতা ঘেরা সেই চেনা বারান্দায় ;
আমের শাখায় মুকুল আর চৈত্র শেষে কোকিলের ক্লান্ত কুহুস্বর..
নতুন বছরের গন্ধমাখা প্রকৃতি।

ওভেনে জল চাপিয়ে চাল দিতেই ভুলে গেল মল্লিকা !
মনে ভেসে আসছে কত স্মৃতি;

পয়লা বৈশাখ সকাল হলেই লুচি ,আলুভাজা,বোটাওয়ালা বেগুনভাজা ..
রেডি করতে করতেই ,
খবরের কাগজ সরিয়ে রেখে,
মল্লিকার এগিয়ে দেওয়া খাতার পাতায় নতুন কবিতা।
পাগলী মেয়েটা জোরে জোরে পড়ে শোনাতো কতবার !

তারপর সারাদিন শুধু খুনসুটি , আদর ,সোহাগ আর..
দুপুরের মেনুতে — মাছ,ভাত, সরষে পটল, এঁচোড়ের দোরমা, আমের চাটনি,মিস্টি দই ,পাঁপড়…
খাওয়া শেষে একটা মিস্টি পানে দুজনের সমান ভাগ..
খুশি আর খুশি !

এবারেও পয়লা বৈশাখ এল ..
বড্ড নিস্পৃহ নিস্তেজ হয়ে..
কয়েকমাস আগে প্রিয় মানুষটির এগিয়ে দেওয়া ডিভোর্সের কাগজে ,
নীরবে সই করতে গিয়ে একবারও ভাবেনি মল্লিকা..
এই দিনটায় এত করে মনে পড়বে সবকিছু,
এমন করে আনমনা হয়ে যাবে সে !
অজান্তেই নিজের মনে গেয়ে ওঠে..
“হয়তো বা কান্নার শেষ আছে ,
বুঝি আমি এসে গেছি কিনারায় …”

Leave a Reply